SOP লেখার অভিনব কৌশল

ইউরোপীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদনে শিক্ষার্থীকে একটি স্টেটমেন্ট অব পারপাস বা মোটিভেশন লেটার লিখতে হয়। এটি এমন একটি পত্র যা দেখে ভর্তি কমিটি শিক্ষার্থীর বাস্তবিক-একাডেমিক জ্ঞান, যে বিষয়ে আবেদন করতে চাচ্ছে সে বিষয়ের উপর কাজের দক্ষতা বা ছোট ছোট কর্মশালা সম্পন্নের অভিজ্ঞতা, শিক্ষার্থীর সে বিষয়ে পড়াশুনার প্রবল ইচ্ছা , শিক্ষার্থীর ক্যারিয়ার গোল, বুদ্ধিমত্তা ইত্যাদি বিষয়ের উপর মূল্যায়ন করা হয়।

একটি ভাল মোটিভেশন লেটার ইউরোপীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে শতভাগ সাহায্য করে। ইউরোপীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি কমিটি একাডেমিক সার্টিফিকেটের চেয়ে মোটিভেশন লেটারকে বেশি প্রাধান্য দেয়। সুতরাং বুঝতেই পারছেন এর গুরুত্ব কতখানি। এছাড়া সুবিন্দুর মোটিভেশন লেটার নিয়ে একটি পেইড সার্ভিস রয়েছে যারা মোটিভেশন লেটার লিখতে সমস্যা মনে করছেন, আপনারা সুবিন্দুর মাধ্যমে একটি অরিজিনাল ইউনিক লেটার লেখার ওর্ডার করতে পারেন।

অনেকের মাঝে একটি সাধারণ প্রশ্ন রয়েছে – ৪টি বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদনের জন্য কি ৪ রকমের মোটিভেশান লেটার বা সোপ লিখতে হবে? মোটিভেশান লেটার বা সোপ তৈরিতে নির্ভর করবে আপনি কোন বিষয়ে আবেদন করছেন। যদি ৪ টি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোগ্রাম বা বিষয় ৪ রকমের হয় তাহলে উক্ত বিষয়ের উপর ৪ ধরনের রচনা আপনাকে লিখতে হবে। যদি একি রকম বিষয় ২ এর অধিক বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদন করছেন সেক্ষেত্রে শুধুমাত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন করে একি রচনা ভিন্ন ভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে দিতে পারেন।   

স্টেটমেন্ট অব পারপাস এবং মোটিভেসান লেটার দুইটির মধ্যে পার্থক্য কি?

আপাত দৃষ্টিতে মনে হয় যেন এই দুইটি রচনার মাঝে তেমন কোন পার্থক্য নেই, তারপরেও কিছু মৌলিক পার্থক্য তুলে ধরছি, যদিও পার্থক্য গুলি দেখে মনে হবে যেন, আসোলেই এইগুলি কোন পার্থক্য নয়, ২ টি রচনা একি জিনিস।

স্টেটমেন্ট অব পারপাসে নিজ সম্পর্কে বিষদ আলোচনা হয়ে থাকে, কেন বা কিভাবে আপনি এই বিষয়ে পড়াশুনায় প্রভাবিত হয়েছেন, এই বিষয়ে পড়াশুনার প্রেষণা কিভাবে পেলেন, বিষয় ভিত্তিক বেক্তিগত অভিজ্ঞতার বর্ণনা, আপনি কেন অন্যদের চেয়ে আলাদা ইত্যাদি এবং রচনার স্ট্রাকচার বা গঠনে কিছু ভিন্নতা রয়েছে যেমন স্টেটমেন্ট অব পারপাস লেখার সময় প্রথম প্যারায় প্রোগ্রাম বা বিষয়ের উপর সূচনা বক্তব্য লিখতে হয় যেমন আপনি যদি ফাইনান্স নিয়ে পড়তে চান তাহলে ফাইনান্স নিয়ে কিছু লিখতে হয়।

অপরদিকে মোটিভেসান লেটারে নিজ সম্পর্কে আলোকপাত খুবি অল্প কথায় শেষ করতে হবে, এখানে সকল কিছু প্রোগ্রাম বা বিষয়কে কেন্দ্র করে হবে, উক্ত বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে আপনার গঠন মূলক আলোচনা থাকবে, কেন তাদের দেশে পড়তে চান, যে বিষয় পড়তে চান সে বিষয়ের উপর আপনার স্পেশাল কি কি গুণাবলী আপনার রয়েছে, স্কিলস, আপনার ক্যারিয়ার প্লান ইত্যাদি এবং  মোটিভেশান লেটারের শুরুতে  Dear Sir দিয়ে শুরু করতে হয় এবং  I am writing to request if you could consider my academic qualifications এই ধরনের বাক্য দিয়ে শুরু করা হয় যেখানে কোন সূচনা বক্তব্য ছাড়াই সরাসরি মূল পয়েন্ট নিয়ে লেখা হয় এবং রচনার শেষ ভাগে  Regards and thank you in advance এই জাতিয় ভাব প্রকাশ করে রচনা শেষ করতে হয়।  এটিই হল তাদের ভিতর মূল পার্থক্য।

নিচের সকল নিয়ম অনুসরণ করলে একটি ভাল মোটিভেশন লেটার আপনি নিজেই লিখতে পারবেন।

কিভাবে একটি সুন্দর প্রাঞ্জল স্টেটমেন্ট অব পারপাস বা মোটিভেসান লেটার লিখবেন

  • প্রথমত অনেক সময় নিয়ে ধীরে ধীরে মোটিভেশন লেটার লিখবেন। একদিনে বসে মোটিভেশন লেটার সম্পন্ন করে ফেলবেন,এই চিন্তা ভুলেও করা যাবে না।
  • বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য কি কি একাডেমিক যোগ্যতা চেয়েছে তা সম্পূর্ণ রূপে বুঝে নিন। এবং সেই অনুযায়ী আপনার দক্ষতা,যোগ্যতা লিখুন।
  • যে সমস্ত বিষয় সিভিতে লিখেছেন পুনরায় তা মোটিভেশন লেটারে লিখবেন না।

যেসকল প্রশ্নের প্রেক্ষিতে স্টেটমেন্ট অব পারপাস বা মোটিভেসান লেটার লেখা হয়

  • আপানর প্রফেশনাল লক্ষ্য বস্তু কি? ডিগ্রি অর্জন শেষে আপনি কোন সেক্টরে কাজ করতে চান?
  • উক্ত সেক্টর বা আপনার পজিশনে থেকে আপনি কিভাবে দেশের সামাজিক, রাজনৈতিক বা কারিগরি উন্নয়ন করবেন? (এখানে আপনার কিছু পুঁথিগত জ্ঞানের রেফারেন্স বা বাস্তবিক রেফারেন্সর উদাহরণ সহকারে দিতে পারেন)
  • কেন আপনি এই প্রোগ্রাম/কোর্স পছন্দ করেছেন? এই প্রোগ্রাম/কোর্স কিভাবে আপনার প্রফেশনাল লক্ষ্য অর্জনে সহায়তা করবে?
  • কেন এই দেশে পড়াশোনা করতে চান?
  • কেন এই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করতে চান?
  • আজ থেকে ১০ বছর পর নিজেকে কোথায় কিভাবে দেখতে চান?
  • কোন বিষয়ে রিসার্চ করার আপনার আগ্রহ?
  • কেন আপনি এই বিষয়ে রিসার্চ করতে চান?
  • এই প্রোগ্রাম/কোর্সের জন্য নিজেকে কেন যোগ্য ক্যান্ডিডেট মনে করছেন?
  • পূর্বে এই প্রোগ্রাম/কোর্স সম্পর্কিত কি কি নলেজ এবং স্কিল অর্জন করেছেন? এবং ইহা কিভাবে এই প্রোগ্রাম/কোর্স সফলভাবে সম্পন্ন করতে আপনাকে সাহায্য করবে?
  • আপনি কি এই সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে কোন প্রফেশনাল এক্সপেরিয়ান্স অর্জন করেছেন?
  • আপনার কোন প্রতিষ্ঠানে কাজ করার এক্সপেরিয়ান্স রয়েছে? যেমন স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশান, এনজিও, ভলান্টিয়ার সেবা ইত্যাদি ?
  • আপনি কিভাবে আপনার ব্যক্তিত্বকে সংজ্ঞায়িত করবেন? (অবশ্যই আপনার অতি গুরুত্বপূর্ণ বাস্তবিক ব্যক্তিত্ব নিয়ে লিখবেন)
  • এই দেশটির উচ্চশিক্ষা ব্যবস্থা সম্পর্কে আপনি কি জানেন?(অবশ্যই আপনার প্রোগ্রাম/কোর্সকে বেশি ফোকাস করবেন)
  • আপনি কি আশা করেন এই প্রোগ্রাম/কোর্সটি আপনার দেশীও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা থেকে ভিন্নতর হবে? যদি তা মনে করেন তাহলে কিভাবে ভিন্নতর হবে?
  • যে দেশে পড়াশোনা করবেন ঐ দেশের কি কোন বিশেষ বৈশিষ্ট্য আছে যেটাকে মডেল হিসাবে ধরে সেই অনুযায়ী আপনার দেশকে সেবা বা উন্নয়ন করবেন?
  • যে দেশে পড়াশোনা করবেন ঐ দেশের কি কোন নূতনত্ব কিছু আছে যেটা আপনি আপনার দেশে প্রবর্তন করতে চান? কোনটি এবং কেন আপনার দেশে প্রবর্তন করবেন?

নোট: আপনার স্টেটমেন্ট অব পারপাস বা মোটিভেসান লেটার  ভাল ভাবে লিখা হয়েছে কিনা সেদিকে লক্ষ্য রাখুন। দরকার হলে কয়েকবার রিভাইস দিন এবং প্রয়োজনীয় সকল তথ্য দিয়েছেন কিনা  লক্ষ্য করুন। 

লেটারের ফর্মেট কেমন হবে

  • কত শব্দের রচনা লিখবেন এটা সাধারণত বিশ্ববিদ্যালয় বলে দেয় যদি না বলে, সেক্ষেত্রে ৬০০-৬৫০ শব্দের, ১ বা ১-২ পেইজের ভিতর লিখবেন।
  • মোটিভেশন লেটারে উপরে আপনার নাম, ঠিকানা, ই-মেইল, মোবাইল নং উল্লেখ করুন এবং স্টেটমেন্ট অব পারপাসের ক্ষেত্রে সবার নিচে বাম দিকে উল্লেখ করুন।
  • স্ট্রাকচারঃ ভূমিকা,বডি প্যারাগ্রাফ এবং উপসংহার (৬-৮ টি প্যারা হতে পারে)
  • অবশ্যই কালো ফন্টে টাইপ করবেন।
  • ফন্ট সাইজ ১১ দিবেন।
  • রিকোমেন্ডেড ফন্টস: Times New Roman, Arial, Tahoma, Helvetica, Bookman ।

মানানসই এবং উপযুক্ত পদ্ধতিতে লিখবেন

  • অযৌক্তিক, অতি রঞ্জিত বাক্য, তোষামোদকারী বাক্য ব্যাবহার করবেন না।
  • উদাহরণ সংক্ষিপ্ত আকারে দিবেন।
  • চিন্তাশীল বা সাহিত্যিক রূপে আপনার লিখাটি লিখবেন।
  • গ্রামাটিকেল এবং বানান ভুল করবেন না।
  • মোটিভেশন লেটারটি লেখার পর আপনার অভিজ্ঞ বন্ধু, সহকর্মী, শিক্ষককে দেখান এবং ভুল গুলি চিহ্নিত করুন।

উপরোক্ত আর্টিকেলটি জার্মানির DAAD অয়েভসাইটের একটি আর্টিকেলের আলোকে লেখা হয়েছে।  আমি আপনাদেরকে একটি মোটিভেশন লেটার এবং ১ টি স্টেমেন্ট অব পারপাসের নমুনা দেখাব, যেটা আপনাকে ভাল একটি রচনা লিখতে সহায়তা করবে। মনে রাখবেন এই রচনা লেখার সময় কোন জায়গা থেকে কপি করবেন না, যদি করেন নিশ্চিত ভর্তি সুযোগ পাবেন না। কারণ এই ধরনের রচনা পর্যালোচনা করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের আলাদা বোর্ড থাকে, তাঁরা যথেষ্ট এক্সপার্ট।   এছাড়া স্কাইপ বা সিলেকশন ইন্টার্ভিউয়ে এই রচনা থেকে ইন্টার্ভিউআর প্রশ্ন করতে পারে।

যারা স্টেটমেন্ট অব পারপাস বা মোটিভেসান লেটার লিখতে সমস্যা মনে করছেন, আপনারা সুবিন্দুর মাধ্যমে একটি অরিজিনাল ইউনিক লেটার লেখার ওয়ার্ডার করতে পারেন।

এখানে ৪টি ব্রান্ড নিউ মোটিভেসান লেটার/ স্টেটমেন্ট অব পারপাস লেখা হয়েছে, এই রচনা টি হুবহু নকল করবেন না, সুধুমাত্র আইডিয়া নিন।  ভর্তি নির্বাচক কিছু সফটওয়ার ব্যাবহার করে থাকে এবং খুব সহজেই ডিটেক্ট করা যায় আপনার লেখাটি কোথা থেকে ধার করে লিখেছেন। সেখানে নির্বাচক দেখতে পারবে যে আপনি সুবিন্দুর এই আর্টিকেল থেকে নকল করেছেন। এই ৪টি রচনা আমাদের নিজস্ব লেখা এবং যারা আমাদের মাধ্যমে এই ধরনের রচনা লিখাতে চাচ্ছেন তারা এই রচনা গুলির কোয়ালিটি দেখে নিতে পারেন মুলুত এই স্ট্যান্ডার্ডে আমাদের লেখা গুলি হয়ে থাকে।

SOP & MOTIVATION LETTER

 

মন্তব্যসমূহ

Facebook