রিকোমেন্ডেশন লেটারঃ প্রিয় শিক্ষক থেকে সংগ্রহ করুণ

ইউরোপীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদনের সময় রিকমেন্ডেশন লেটার-Recommendation Letter চাওয়া হয়। ভর্তি আবেদনের জন্য রিকমেন্ডেশন লেটার একটি গুরুত্বপূর্ণ পার্ট।  সাধারণত ইউরোপীয় বিশ্ববিদ্যালয় ২ টি রিকমেন্ডেশন লেটার চেয়ে থাকে।  রিকমেন্ডেশন লেটার হল এমন একটি রচনা যেখানে শিক্ষার্থী সম্পর্কে ভাল কথা লিখা থাকে। মূলত একজন শিক্ষার্থীর যোগ্যতা, একাডেমিক কর্মক্ষমতা, মেধা প্রভৃতি নিয়ে আলোচনা করা হয়।

 রিকমেন্ডেশন লেটার-Recommendation Letter কে ইস্যু করবে

 সাধারণত রিকমেন্ডেশন লেটার সর্বশেষ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক এই লেটারটি ইস্যু করে। অবশ্যই আপনি যে ডিপার্টমেন্ট বা গ্রুপে পড়াশোনা করেছেন ঐ ডিপার্টমেন্টের শিক্ষক এই লেটারটি ইস্যু করবে(এবার হতে পারে তিনি ডিপার্টমেন্টের সাধারণ শিক্ষক হতে পারে তিনি ফ্যাকাল্টির ডিন হতে পারে তিনি ডিপার্টমেন্টের হেড)। যদি আপনি চাকুরীজীবী হন সেক্ষেত্রে আপনার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা  এই লেটার ইস্যু করতে পারবে এবং অবশ্যই বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে যোগাযোগ করে নিবেন যে প্রফেশনাল রিকমেন্ডেশন লেটার গ্রহণযোগ্য কিনা।

প্রায় সময় দেখা যায় বিশ্ববিদ্যালয় বা কলেজের শিক্ষকের নিকট এই লেটারের কোন প্রকার ফরম্যাট বা নতুন একটি লেটার তৈরির জন্য তিনি যে লিখবেন এই সময়টা তাঁর কাছে থাকে না। তখন শিক্ষক আপনাকে বলতে পারে তুমি একটি লেটার লিখে নিয়ে আস আমি সাক্ষর করে দিব, সেক্ষেত্রে আপনাকে রিকমেন্ডেশন লেটার নিজেই তৈরি করতে হবে।

তৈরির সময় মনে রাখবেন হুবহু কোন কিছু কপি করে বানাবেন না, কারণ এমন হতে পারে আপনি যে  রিকমেন্ডেশন লেটার ইন্টারনেট থেকে ধার করে বানিয়েছেন এই একি ধরনের লেখা আরেকজন শিক্ষার্থী ধার করে লিখেছে। তখন ভর্তি কমিটি কনফিউজড হয়ে যাবে এবং এর ফলে প্রমাণিত হবে, রিকমেন্ডেশন লেটারে আপনাকে নিয়ে যে ধরনের ভাল ভাল কথা লিখা আছে তা আসলে মিথ্যা। তখন ভর্তি প্রস্তাব পাবার সম্ভাবনা ক্ষীণ থাকবে।

রিকমেন্ডেশন লেটারের ফরম্যাট

  • রিকমেন্ডেশন লেটার ১ পাতায় শেষ করতে হবে ১ পাতায় যত গুলি ওয়ার্ড লেখা যায়।
  • রিকোমেন্ডেড ফন্টসঃ Times New Roman, Arial, Tahoma, Helvetica, Bookman ।
  • রিকমেন্ডেশন লেটারে ২-৫ টি প্যারা থাকতে পারে।
  • অবশ্যই বিশ্ববিদ্যালয়/ফ্যাকাল্টি/ডিপার্টমেন্ট বা প্রতিষ্ঠানের অফিশিয়াল পেডে প্রিন্ট দিতে হবে
  • রিকমেন্ডেশন লেটার যিনি ইস্যু করবেন, লেটারের নিচে তাঁর বিস্তারিত ডাটা থাকতে হবে যেমন: নাম, পদবী, ই-মেইল, ফোন নাম্বার, নিজস্ব স্ট্যাম্প
  • একটি  রিকমেন্ডেশন লেটার ইস্যু তারিখ থেকে ৩ মাস পর্যন্ত মেয়াদ থাকে।
  • রিকমেন্ডেশন লেটারে অবশ্যই আপনার পূর্ণ নাম ম্যানশন করা থাকতে হবে।
  • রিকমেন্ডেশন লেটার সত্তায়নের প্রয়োজন নেই।
  • রিকমেন্ডেশন লেটারে, যে বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদন করবেন ঐ বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম ম্যানশন করা থাকলে থাকলে ভাল

রিকোমেন্ডেশন লেটার সহ অন্যান্য বিষয় নিয়ে প্রশ্ন যেকোন প্রকার তথ্য জানতে এই পেইজে কমেন্ট করুণ, আশাকরি দ্রুত যথাযথ উত্তর পেয়ে যাবেন। আপডেট তথ্য বা পোস্ট সম্পর্কে জানতে চাইলে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিয়ে এক্টিভ থাকুন।

 

মন্তব্যসমূহ

Facebook