চেক প্রজাতন্ত্রে আইনস্টাইনের বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদন করুণ

চেক প্রজাতন্ত্র বাংলাদেশী শিক্ষার্থীদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে। এর মূল কারণ চেক প্রজাতন্ত্র যথেষ্ট নিরাপদ এবং শান্তির একটি দেশ। অন্যান্য ইউরোপীয় দেশের তুলনায় এখানে আবাসন এবং খাওয়া-দাওয়ার খরচ অনেক সস্তা। পাশাপাশি দেশিটির রয়েছে অপরূপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য । চেক প্রজাতন্ত্রে অনেক ঐতিহাসিক স্থাপত্য রয়েছে। যা দেখার জন্য প্রতি বছর বহু পর্যটক এই দেশে ভীর জমায়। চেক প্রজাতন্ত্র পূর্বে চেকোস্লোভাকিয়ার অংশ ছিল। ১৯৯৩ সালে চেক প্রজাতন্ত্র চেকোস্লোভাকিয়া থেকে বের হয়ে নিজেই একটি রাষ্ট্র তৈরি করে যারা নাম দেওয়া হয় চেক প্রজাতন্ত্র। প্রায় ৪০ বছর এই দেশটিতে কমিউনিস্ট শাসন চলেছে। এর ধারাবাহিকতায় দেশটির অনেক জনগণ নাস্তিক্যবাদে বিশ্বাসী। হিটলার যখন ধীরে ধীরে ইউরোপের বিভিন্ন দেশ দখলে নিচ্ছে, তখন চেকোস্লোভাকিয়া তৎকালীন পরিস্থিতি বিচার করে হিটালারের নাজি বাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণ করে, এর ফলে নাজি বাহিনীর ধ্বংসাত্মক কোন প্রকার কর্মকাণ্ড চেক প্রজাতন্ত্রে চালানো হয়নি। মূলত এই কারণেই চেক প্রজাতন্ত্রে ৩০০ বছরের পুরাতন স্থাপত্য এখনো রয়েছে।

চেক প্রজাতন্ত্র বিভিন্ন মানুষের কাছে বিভিন্নভাবে পরিচিত। কেউ চিনে তাদের বৃহত্তম প্রাচীন ক্যাসেল দিয়ে। আবার কেউ চিনে ওয়ার্ল্ড হেভিয়েস্ট বিয়ার কনসিউমার হিসাবে। তবে জ্ঞানের পিয়াসু চিনে একটু অন্যভাবে । এই চেক প্রজাতন্ত্রের একটি স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিভাবান পদার্থবিজ্ঞানী আইনস্টাইন  অধ্যাপনা করেছেন। এপ্রিল ১৯১১ সালে চার্লস বিশ্ববিদ্যালয়ের এই পদার্থবিজ্ঞানী পূর্ণকালীন অধ্যাপক হিসেবে আইনস্টাইন নিযুক্ত হন। সেই সময়ের মধ্যেই, তিনি আপেক্ষিকতার বিশেষ তত্ত্বের লেখক এবং তাপবিদ্যায় এবং আণবিক পদার্থবিজ্ঞানে বিশেষত কোয়ান্টাম তত্ত্ব, পদার্থবিজ্ঞানে বেশ কয়েকটি সফল গবেষণার লেখক হিসেবে প্রশংসিত হয়েছেন। বর্তমানে এই চার্লস বিশ্ববিদ্যালয়ে কিছু সংখ্যক বাংলাদেশী শিক্ষার্থী অধ্যয়নরত এবং গবেষণায় আছেন। ইচ্ছা করলে আপনিও সে সকল মেধাবীদের একজন হতে পারেন এর জন্য চাই অধ্যবসায় এবং ভাল ফলাফল।

চেক প্রজাতন্ত্র কে ইউরোপের উচ্চ শিক্ষার সূতিকাগার হিসেবে বহু আগে থেকেই বিবেচনা করা হয়। বর্তমানে চেক বিশ্ববিদ্যালয় আন্তর্জাতিক ভাবে যথেষ্ট এগিয়ে আছে এবং চেক ডিগ্রি ধারিরা ন্যাশনাল এবং ইন্টারন্যাশনাল ভাবে খুবি ভাল গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করেছে। চেক বিশ্ববিদ্যালয়ের সগৌরবের ৭০০ বছরের প্রাচীন ইতিহাস রয়েছে। প্রায় সবগুলি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় অনেক পুরাতন। বিশ্ববিদ্যালয়ের  শিক্ষা ব্যবস্থা খুবই উন্নত। চার্লস বিশ্ববিদ্যালয়ে যা ১৩৪৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় এবং এটি হল মধ্য ইউরোপের সর্বপ্রথম বিশ্ববিদ্যালয়। চার্লস বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পর দেশটিতে উচ্চ শিক্ষা এবং গবেষণার জন্য বহু শিক্ষার্থীর পদচারণ শুরু হয় এবং পরবর্তীতে ১৫৭৬ সালে পালাস্কি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হয়। বর্তমানে এই  পালাস্কি বিশ্ববিদ্যালয় এবং চেক টেকনিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় আন্তর্জাতিক আইটি ডিপার্টমেন্ট এর মধ্যে প্রথম ও পঞ্চম স্থানে আছে।

চেক প্রজাতন্ত্রের অবস্থান মধ্য ইউরোপে।  প্রতিবেশী দেশগুলির তালিকায় রয়েছে পোল্যান্ড, জার্মানি, অস্ট্রিয়া এবং স্লোভাকিয়া । এই দেশটি কে “হার্ট অফ ইউরোপ” বলা হয়।  চেক প্রজাতন্ত্রে  প্রায় ২০০০ অধিক প্রাচীন ক্যাসেল রয়েছে এবং এখানে বিশ্বের বৃহত্তম প্রাচীন ক্যাসেল রয়েছে যার নাম প্রাগ ক্যাসেল। সত্যি এক অসাধারণ ক্যাসেল যেটা তৈরি হয়েছিল ৯ম শতাব্দী তে। আরও একটি অবাক করা বিষয় হল এখানকার মানুষ এর প্রধান পানিয় খাবার হল বিয়ার। আর এই কারণেই চেক পিপল কে বলা ওয়ার্ল্ড হেভিয়েস্ট বিয়ার কনসিউমার।

চেক প্রজাতন্ত্র ভৌগোলিকভাবে  ইউরোপের কয়েকটি প্রাচীনতম স্থল রুট গুলির মধ্যে অবস্থিত, বোটানিক সমুদ্র থেকে সুপরিচিত “আম্বর রোড” এবং ভূমধ্য সাগর। কমিউনিস্ট শাসনের  দীর্ঘ সময়ের পর, চেক প্রজাতন্ত্র উচ্চতর  অর্থনীতিতে একটি উন্নত দেশ হয়ে উঠতে কঠোর পরিশ্রম করেছে, তাদের সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য এবং শক্তিশালী গণতন্ত্রের ওপর ভিত্তি করে দেশটি এগিয়ে যাচ্ছে।

 

চেক শিক্ষা পদ্ধতির ধাপ:

চেক শিক্ষা ব্যবস্থায় মোট ৪টি ধাপ আছে।

১। প্রি স্কুল: ২-৫ বছরের শিক্ষার্থীদের জন্য।

২।ইলিমেন্টারিঃ ৬-১৫ বছরের শিক্ষার্থীদের জন্য।

৩। হাই স্কুল,গ্রামার স্কুল, কলেজ এবং ট্রেনিং কলেজ। (এই ক্ষেত্রে বয়সের কোন লিমিট নেই)।

৪। ইউনিভার্সিটি।(এই ক্ষেত্রে বয়সের কোন লিমিট নেই)।

চেক বিশ্ববিদ্যালয় সমূহ তাত্ত্বিক ভিত্তিক, রিসার্চ ওরিয়েন্টেড এবং ব্যবহারিক প্রশিক্ষণ পদ্ধতিতে শিক্ষা প্রদান করে। এখানের বিশ্ববিদ্যালয়ে  ব্যাচেলর, মাস্টার্স এবং ডক্টরাল প্রোগ্রামে চেক এবং ইংরেজি ভাষায় পড়ানো হয়। ইন্টারন্যাশনাল শিক্ষার্থীদের  বিভিন্ন ডিসিপ্লিনে ভর্তির সুযোগ রয়েছে। যেমন: ইঞ্জিনিয়ারিং, মেডিসিন, লো, ফার্মাসিউটিক্যাল সায়েন্স, নেচারাল সায়েন্স, ইকোনমিক্স, ব্যবস্থাপনা, হিউম্যানিটিস, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক সহ আরও কিছু ডিসেপ্লিন। । চেক ডিগ্রি ধারিরা আন্তর্জাতিক নিয়োগদাতাদের কাছে যথেষ্ট প্রশংসা কুড়িয়েছে বিশেষ করে বিজনেস গ্র্যাজুয়েট, ডাক্তার, প্রকৌশলী, স্থাপত্যবিদ এবং আইটি বিশেষজ্ঞগন। উচ্চ শিক্ষার জন্য চেক প্রজাতন্ত্র  ৪ ক্যাটাগরির প্রতিষ্ঠান রয়েছে। ১।পাব্লিক বিশ্ববিদ্যালয়, ২। স্টেট বিশ্ববিদ্যালয় (পুলিশ এবং মিলিটারি), ৩। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ৪। অনিবন্ধিত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়।    .
চেক প্রজাতন্ত্রের সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকা, কোথায় কোন বিষয় টি রয়েছে, ভর্তি আবেদনের প্রক্রিয়া এবং ভর্তির শর্তাবলী জানতে স্টাডি প্রোগ্রাম সেক্সানে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

মন্তব্যসমূহ

Facebook