ইউরোপীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি বিষয়ে একাডেমিক কাগপত্রের সত্তায়ন প্রক্রিয়া

আমরা জানি যে ইউরোপীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদনের জন্য আমাদের একাডেমিক সত্যায়ন-Certificate Attestation করতে হয়। একজন শিক্ষার্থী তাঁর সকল একাডেমিক কাগজপত্র কিভাবে সত্যায়ন করতে পারবে এ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা এই আর্রা্টিকেলে হয়েছে।

সর্বশেষ পরীক্ষার মূল সার্টিফিকেট/ট্র্যান্সক্রিপ্ট যারা লেমোনেটিং করে ফেলেছেন, তারা নীলক্ষেত থেকে লেমোনেটিং উঠাতে পারবেন। প্রতি পেইজ চার্জ ৪০৳ নিবে। সার্টিফিকেট/ট্র্যান্সক্রিপ্ট অবশ্যই লেমোনেটিং বিহীন হতেই হবে।

 

কারা সার্টিফিকেট সত্যায়ন-Certificate Attestation করে

ইউরোপে উচ্চশিক্ষার জন্য ভর্তি আবেদন করতে হলে, সর্বপ্রথম আপনার সর্বশেষ পরীক্ষার মূল সার্টিফিকেট/ট্র্যান্সক্রিপ্ট শিক্ষা বোর্ড /বিশ্ববিদ্যালয় + শিক্ষা মন্ত্রণালয় +পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় + সংশ্লিষ্ট দূতাবাস(ক্ষেত্র বিশেষ) থেকে সত্যায়ন করতে হবে।

সার্টিফিকেট/ট্র্যান্সক্রিপ্টের সত্তায়নের বিস্তারিত প্রক্রিয়া

সত্যায়ন পূর্বে যে সকল ইউরোপীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদন করবেন তাঁদেরকে জিজ্ঞেস করে নিন, কোন কোন সার্টিফিকেট/ট্রান্সক্রিপ্ট সত্যায়্ন প্রয়োজন। সে অনুযায়ী সত্যায়্ন করুন। সাধারণত ইউরোপীয় বিশ্ববিদ্যালয় সর্বশেষ পরীক্ষার সার্টিফিকেট/ট্র্যান্সক্রিপ্টের সত্যায়ন চায়।

I. যদি আন্ডার গ্র্যাজুয়েট হন, 

প্রথমত, এসএসসি, এইচএসসি সার্টিফিকেট/ট্র্যান্সক্রিপ্টের মূল ও ০২ কপি ফটোকপি সহ  আপনার সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক থেকে সত্যায়্ন করবেন। এর জন্য আপনাকে প্রতি পেইজ সত্যায়্ন ফী ২৫- ২৫০৳ দিতে হবে। সর্বোচ্চ ০৪ দিন লাগতে পারে।

II.  যদিগ্র্যাজুয়েট হন(তখন আপনার এসএসসি বা এইচএসসির সার্টিফিকেট সত্যায়নের প্রয়োজন নেই)

প্রথমত, ব্যাচেলর সার্টিফিকেট/ট্র্যান্সক্রিপ্টের মূল ও ০২ কপি ফটোকপি সহ আপনার বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক থেকে সত্যায়্ন করুন। এর জন্য আপনাকে প্রতি পেইজ সত্যায়ন ফী ১৫০-২০০৳ দিতে হবে। সর্বোচ্চ ০২ দিন লাগতে পারে। অনেক বিশ্ববিদ্যালয় বিনামূল্য সত্যায়ন করে দেয়।

III. পরের ধাপগুলি আন্ডার গ্র্যাজুয়েট,গ্র্যাজুয়েট সবার জন্য পালনীয়ঃ

দ্বিতীয়ত, শিক্ষা বোর্ড কিংবা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক সত্যায়্ন করা সার্টিফিকেট/ট্র্যান্সক্রিপ্টের মূল ও ফটোকপিটি শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে সত্যায়্ন করতে হবে এটি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে   করতে পারবেন। সকাল ১০.০০ মিনিটে জমা দিবেন ঐ দিনেই বিকাল ৩.০০ মিনিটে পেয়ে যাবেন।

তৃতীয়ত, শিক্ষা মন্ত্রণালয় কতৃক সত্যায়্ন করা সার্টিফিকেট/ট্র্যান্সক্রিপ্টের মূল ও ফটোকপিটি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে বিনামূল্যে সত্যায়্ন  করুন। সকাল ৯.৩০ মিনিটে জমা দিবেন ঐদিনেই বিকাল ৩.৩০ মিনিটে পেয়ে যাবেন।

চতুর্থত, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কর্তৃক সত্যায়্ন করা সার্টিফিকেট/ট্র্যান্সক্রিপ্টের শুধুমাত্র ফটোকপিটি নোটারাইজ (নোটারি পাবলিক) করুন। এর জন্য আপনাকে প্রতি পেইজ ১০-২০৳ দিতে হবে। ২০ মিনিটের মধ্যেই পেয়ে যাবেন।

পঞ্চমত, শুধুমাত্র ফটোকপি নোটারাইজ (নোটারি পাবলিক) করা সার্টিফিকেট/ট্রান্সক্রিপ্ট গুলি মিনিস্ট্রি অব লো থেকে সত্যায়্ন করুন।  মিনিস্ট্রি অব লো থেকে অরিজিনাল সার্টিফিকেট/ট্রান্সক্রিপ্টের সত্যায়্ন প্রয়োজন নেই।

সতর্কীকরণঃ আমি আবারও বলছি শুধুমাত্র ফটোকপিটি নোটারাইজ করবেন। ভুলেও মূল সার্টিফিকেট/ট্র্যান্সক্রিপ্ট নোটারাইজ করবেন না। 

নোটঃ এসএসসি, এইচএসসি, ব্যাচেলরের রেজিস্ট্রেসান, প্রবেশ পত্র ইত্যাদি ডকুমেন্ট হারিয়ে গিয়ে থাকলে কোন সমস্যা নেই। এই গুলির কোনরূপ কাজ আর লাগবে না।

 

 নোস্ট্রিফিকেসানঃ

ইউরোপীয় কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে “your Diploma are required for the nostrification.”   এই লেখাটি দেখা যায়। এর অর্থ হল  ইউরোপীয় দেশ  আপনার পক্ষে সার্টিফাই করবে যে, আপনি উচ্চ শিক্ষার জন্য সম্পূর্ণ রূপে সক্ষম বা যোগ্য। আপনার যোগ্যতার এই সনদের নাম Eligible for Higher Studies বা Certificate of Nostrification.

এই নোস্ট্রিফিকেসান আপনাকে স্ব স্ব দেশে থেকে করতে হবে। এরজন্য সময় লাগবে বড়জোর ১মাস। যদি কোন বিশ্ববিদ্যালয় আপনাকে বলে, নোস্ট্রিফিকেসান করে তারপর তাঁর বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদন করতে হবে তাহলে আপনাকে ভর্তির পূর্বে নোস্ট্রিফিকেসান করতে হবে।

 নোস্ট্রিফিকেসান করতে যেই ডকুমেন্টটি আপনার প্রয়োজন হবে

  1. যদি আন্ডার গ্র্যাজুয়েট হনতাহলে আপনার এসএসসি এবং এইচএসসিতে যত গুলি সাবজেক্ট পড়েছেন তা ক্রেডিট আওয়ারে কনভার্ট করতে হবে এবং এই কনভার্ট করা কাগজে আপনার স্কুল এবং কলেজ প্রধানের সাক্ষর থাকতে হবে।
  2. যদি আপনিগ্র্যাজুয়েট হন,  যদি আপনার ব্যাচেলরের ট্র্যান্সক্রিপ্টে ক্রেডিট আওয়ার পদ্ধতিতে থেকে থাকে সেক্ষেত্রে আপনার কোন কিছু করা লাগবে না। যদি আপনার ব্যাচেলরের ট্র্যান্সক্রিপ্টে ক্রেডিট পদ্ধতি না থাকে, তাহলে আপনি ব্যাচেলরে যতগুলি গুলি সাবজেক্ট পরেছেন তা ক্রেডিট আওয়ারে কনভার্ট করতে হবে এবং এই কনভার্ট করা কাগজ আপনার বিভাগের প্রধানের সাক্ষর থাকতে হবে।
  3. এরপর সত্যায়্ন করা একাডেমিক ডকুমেন্ট গুলি স্ব স্ব দেশের মিনিস্ট্রি তে পাঠাতে হবে। (কোথায় পাঠাবেন সেটা বিশ্ববিদ্যালয় বলে দিবে এর জন্য ১৫,০০০ টাকার মত ফি দিতে হবে)

নোটঃ  এসএসসি এইচএসির রেজিস্ট্রেসান, প্রবেশপত্র, সিভি,রিকমেনডেসান লেটার, মটিভেসান লেটারে, অফার লেটার ইত্যাদির কোনরূপ সত্যায়্ন বা নোটারাইজের বা কোন প্রয়োজন নেই।

সত্যায়ন, নোস্ট্রিফিকেশন সহ অন্যান্য বিষয় নিয়ে প্রশ্ন যেকোন প্রকার তথ্য জানতে এই পেইজে কমেন্ট করুণ, আশাকরি দ্রুত যথাযথ উত্তর পেয়ে যাবেন। আপডেট তথ্য বা পোস্ট সম্পর্কে জানতে চাইলে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিয়ে এক্টিভ থাকুন।

 

মন্তব্যসমূহ

Facebook